PHP একটি গ্লাস ব্র্যান্ডের নাম হিসেবে শোনা হয়েছে আমাদের সবারই। কিন্তু ওয়েব ডেভেলপারদের জন্য PHP খুবই জনপ্রিয় একটি Programming language। 

PHP সাধারণত ওয়েব ডেভেলপমেন্টের জন্য স্পেশালাইজড বহুল ব্যবহৃত ওপেন সোর্সড scripting programming language। পূর্বে একে Personal Home Page হিসেবে প্রকাশ করা হলেও বর্তমানে PHP: Hypertext Preprocessor হিসেবেই এটি ব্যবহৃত। ১৯৯৪ সালে ড্যানিশ ক্যানাডিয়ান প্রোগ্রামার রাসমুস লের্ডর্ফ PHP এর উদ্ভাবন করেন। 

জেনে নিই scripting programming language সম্পর্কে 

Scripting বলতে instruction এর সেট বুঝায়, যা সার্ভারে run করার পর স্বয়ংক্রিয়ভাবে কাজ করে।

আর সার্ভার সাইড বলতে বুঝানো হয় এই Script গুলোকে ইউজারের কম্পিউটার থেকে নিয়ন্ত্রনের বদলে সার্ভার থেকে পরিচালনা করা। 

কেউ PHP ওয়েব পেজ ভিজিট করার সময় ওয়েব সার্ভার PHP কোড Process করে। ইউজারকে যেটা দেখানো দরকার যেমন, Picture,Content ইত্যাদি দেখাবে আর যা দেখানোর প্রয়োজন নেই যেমন- math calculation,file operation ইত্যাদি অদৃশ্য রাখবে এবং পরিশেষে HTML এ রুপান্তর করে ইউজারের ওয়েব ব্রাউজারে পাঠাবে। অর্থাৎ একটা ওয়েবসাইটকে আমরা যেমন দেখি, সেভাবে দেখাবে। আর সেই সাইট তৈরি করতে যেসকল কোডিং এর প্রয়োজন হয়েছে, তা প্রদর্শন করবেনা।  

কিন্তু PHP কেন এত জনপ্রিয়?

ব্লগ, ইকমার্স সাইট থেকে শুরু করে যেকোনো ওয়েবসাইট তৈরিতে PHP প্রয়োজন। এটি WordPress এর মতো বিশাল ব্লগিং প্লাটফর্মকে এক কথায় বলা যায় নিয়ন্ত্রণ করে। ফেসবুকের মতো জনপ্রিয় ও বিশাল সোশ্যাল নেটওয়ার্ক PHP এর উপর নির্ভরশীল।

সকল ওয়েব ডেভেলপাররাই প্রথম server side language হিসেবে PHP ব্যবহার করে ওয়েব ডেভেলপমেন্টে যাত্রা শুরু করে। 

কী থাকে PHP ফাইলে?

ওয়েব ডেভেলপমেন্টের জন্য যা প্রয়োজন, অর্থাৎ text, HTML, CSS, JavaScript আর PHP code। PHP ফাইল চেনার উপায় হলো এর নামের শেষে “.php”  লেখা থাকে; যেমন index.php, home.php, login.php ইত্যাদি। PHP code সার্ভারে ব্যবহারের পর তা ব্রাউজার ওয়েবসাইটে HTML এ পরিণত হয়। 

PHP সাধারণত কী কাজ করে?

PHP এর মূল কাজ হলো ডায়নামিক ওয়েব পেইজ তৈরি করা। সার্ভারে ফাইল তৈরি থেকে শুরু করে ফাইল খোলা, ডিলেট করা, বন্ধ করা সবকিছুই PHP এর মাধ্যমে হয়। একটি ওয়েবসাইটের ডাটা কালেক্ট করা, ওয়েবসাইট ডাটাবেজের ডাটা যুক্ত করা, বাদ দেয়া কিংবা সংশোধন করা, কুকিজ পাঠানো কিংবা গ্রহণ করা – এ সবকিছুই PHP কন্ট্রোল করে থাকে। এছাড়াও ওয়েবসাইটে user-access নিয়ন্ত্রণ করা, ডাটার প্রাইভেসি সংরক্ষণ করা, বিশ্লেষণ করা PHP-এর কাজ। 

PHP কেবলমাত্র HTML হিসেবে ব্রাউজার ওয়েবসাইটকে প্রকাশ করার মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়। আপনি ওয়েবসাইটে যেসকল ছবি, ভিডিও, পিডিএফ ফাইল দেখেন – তা কেবল PHP এর মাধ্যমেই করা সম্ভব। আপনি একটা ওয়েবসাইটকে যেভাবে সাজানো দেখেন, তার সবকিছুই PHP এর অবদান। 

PHP এর রয়েছে বেশ কিছু ভার্সন

PHP Version 1.0

PHP এর প্রতিষ্ঠাকালীন ভার্সন এটি, যা খুবই সিম্পল ছিলো। HTML এর সাথে কাজ করার মতো উপযোগী ছিলো, তবে ছিলো নানা ধরণের অসঙ্গতি। 

PHP Version 2.0

এই ভার্সনটি রিলিজ হয় ১৯৯৫ সালে। PHP Version 1.0 অসঙ্গতি গুলো নিয়ে কাজ করে PHP কে আরো উন্নত করার জন্য একটি টিম তৈরি করে কাজ শুরু করা হয়। Version 1.0 এর দুর্বল দিকগুলো সমাধান করে নের নতুন রূপের নাম দেয়া হয় PHP Version 2.0।

PHP Version 3.0

PHP জনপ্রিয় হওয়ার সাথে সাথে এটি জিভ সুরাস্কি এবং এন্ডি গুটম্যানস এর নজর কাড়ে। ১৯৯৭ সালে তাঁরা PHP নিয়ে আরও কাজ করেন এবং তৈরি করেন PHP3। পাবলিক টেস্টিং শেষ হওয়ার পর ১৯৯৮ সালের জুনে PHP3 রিলিজ করা হয়। 

পরবর্তীতে সুবাস্কি ও গুটম্যানস PHP এর কোর নিয়ে পুনরায় কাজ শুরু করেন এবং ১৯৯৯ সালে Zend engine তৈরি করেন। এর মাধ্যমেই ইসরায়েলের Zend engine টেকনোলজির সূচনা হয়।

PHP Version 4.0

২০০০ সালে Zend Engine 1 কর্তৃক রিলিজ হয়  PHP version 4। ২০০৮ সাল নাগাদ এই ভার্সনকে আরও প্রসারিত করে ভার্সন 4.4.9 হিসেবে প্রকাশ করা হয়। তবে বর্তমানে এতে কোনো প্রকার security update নেই। 

PHP Version 5.0 এবং 6.0

২০০৪ সালে Zend Engine 2 এই ভার্সন রিলিজ করে। এই ভার্সনের রয়েছে Object-Oriented Programming (OOP) এবং PDO (PHP Data Objects) extension এর জন্য বিভিন্ন নতুন ফিচার এবং তুলনামূলক ভালো সাপোর্ট। এই ভার্সনের মাধ্যমে প্রোগ্রামাররা ডাটাবেস এক্সেসের জন্য পায় একটি সহজতর প্লাটফর্ম, যা পারফরম্যান্সের ক্ষেত্রে অনেকাংশে সাহায্য করে। একে ভার্সন 5.6 এ পরিণত করা হয়। 

২০১৮ এর ডিসেম্বরে PHP security এর অফিশিয়াল সাপোর্ট শেষ হয়, তবে ডেভিয়ান ২০২০ সাল পর্যন্ত সিকিউরিটি সাপোর্ট প্রদান করে। 

যখন ডেভেলপাররা বিভিন্ন এপ্লিকেশন ডেভেলপের জন্য  PHP 5 ব্যবহার করতে শুরু করে, দেখা যায় Unicode encoding এর জন্য এই ভার্সনের যথেষ্ট সাপোর্ট নেই। ২০১০ সালে রিলিজ করা হয় traits and closure binding এর মতো non-Unicode ফিচারসম্বলিত version 6.0। 

PHP version 7.0 

২০১৬ থেকে ২০১৭ সালে PHP তে কিছু বড় পরিবর্তন আনার মাধ্যমে রিলিজ হয় ভার্সন 7.0। PHP 7 সাধারণত PHPNG (PHP next Generation) এর উপর বেস করে তৈরি। এটি আগের ভার্সনগুলো হতে তুলনামূলক দ্রুত কাজ করে। Error Handling এর কাজও এ ভার্সনে বেশ উন্নত হয়েছে। যদিও এই ভার্সনেও রয়েছে বেশ কিছু অসঙ্গতি, যা নিয়ে ডেভেলপাররা কাজ করে যাচ্ছেন। 

PHP version 8.0 

PHP language এর সবচেয়ে বড় আপডেট টা হয়েছে ভার্সন 8.0 তে। এই ভার্সনটিতে রয়েছে named arguments, union types, attributes, constructor property promotion, match expression, nullsafe operator, JIT এর মতো অনেক নতুন ফিচার। তাছাড়াও type system, error handling, consistency ইত্যাদিতে অনেক ইমপ্রুভমেন্ট আনা হয়েছে। এই ভার্সন সাপোর্টটি থাকবে ২০২৪সাল পর্যন্ত। 8.0 এর রয়েছে আগের ভার্সন 7.0 এর চেয়ে তুলনামূলক দ্রুত পারফরম্যান্স। 

PHP কীভাবে কাজ করে? 

PHP সার্ভারের মাধ্যমে রান করতে হয়। আর এর জন্য কম্পিউটারে কিছু সফটওয়্যার ইনস্টলের প্রয়োজন হয় ; যেমনঃ উইন্ডোজের জন্য রয়েছে XAMPP, WAMP ইত্যাদি। 

পরবর্তীতে এই সার্ভারগুলো সম্পর্কে আরও তথ্য আপনাদের প্রদান করা হবে, যার মাধ্যমে PHP সম্পর্কে আপনারা জানতে পারবেন আরও অনেক কিছু। চোখ রাখুন আমাদের ব্লগে। 

Leave a Reply

Login Categories
error: Content is protected !!
We'd like to show you notification the latest news and updates